May 18, 2024, 1:23 am
শিরোনাম :
আসছে পলাশ-মিতু’র বিয়াই বিয়াইন সাইফুল বারীর কথায় গাইলেন কামরুজ্জামান রাব্বী ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতাদের সাক্ষাৎ রায়পুরায় হত্যা মামলার আসামীর বিরুদ্ধে বাদীপক্ষের বসতঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের অভিযোগ আমি আপনাদের সেবা করতে এসেছি শাসন করতে নয়; মত বিনিময় সভায় লায়লা কানিজ কোন তরুণ-তরুণী আর কর্মহীন ও বেকার থাকবে না : পলক শেরপুরে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ উপলক্ষে বিজ্ঞান মেলার শুভ উদ্বোধন বেলাবতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রার্থীদের ইশতেহার ঘোষনা আমার দরজা আপনাদের জন্য সবসময় খোলা থাকবে; শেরপুর নবাগত এসপি আকরামুল আবারও বেসিস সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান

তারল্যপ্রবাহ বাড়াতে পুঁজিবাজারে কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ

প্রতিকি ছবি

ডেস্ক রির্পোট

জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন। ‘অর্থনৈতিক উত্তরণ ও ভবিষ্যৎ পথপরিক্রমা’শিরোনামে প্রস্তাবিত বাজেটের পরিধি ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকা।

বাজেটে দেশের বিপর্যস্ত পুঁজিবাজারের মন্দা কাটাতে তারল্যপ্রবাহ বাড়াতে সেখানে কালো টাকা (অপ্রদর্শিত অর্থ) বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

পুজিবাজার-সংক্রান্ত প্রস্তাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশের প্রচলিত আইনে যাই থাকুক না কেন, ব্যক্তি শ্রেণির করদাতাদের চলতি অর্থবছরের ১ জুলাই থেকে ২০২১ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত আয়কর রিটার্নে অপ্রদর্শিত শেয়ার, বন্ড বা যেকোনো সিকিউরিটিজের ওপর ১০ শতাংশ কর প্রদান করে আয়কর রিটার্নে তা প্রদর্শন করলে আয়কর কর্তৃপক্ষসহ অন্য কোনো কর্তৃপক্ষ কোনো প্রশ্ন করতে পারবে না।

পুঁজিবাজারে চলমান মন্দা কাটাতে এই বাজারে তারল্য বাড়ানোর জন্য স্টক এক্সচেঞ্জ, ব্রোকার এবং বিনিয়োগকারীদের পক্ষ থেকে বাজেটে কালো টাকা বিনিয়োগ করার সুযোগ চাওয়া হয়েছিল।

অতীতেও পুজিবাজারে কালো টাকা সাদা করার এমন সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ তহবিল আসেনি বাজারে।

পুঁজিবাজারে গতি ফেরাতে পদক্ষেপ

এ ছাড়া মন্দা পুঁজিবাজারকে গতিশীল ও উজ্জীবিত করতে সরকার ৬টি স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ নিয়েছে বলে বাজেট বক্তৃতায় জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

অর্থমন্ত্রী ঘোষিত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে রয়েছে- পুঁজিবাজারে ব্যাংক ও ব্যাক-বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণ বাড়ানো, মার্চেন্ট ব্যাংকার ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য সহজ শর্তে ঋণসুবিধা পর্যালোচনা, আইসিবির বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়ানো, পুঁজিবাজারে আস্থা বাড়াতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বাড়ানোর লক্ষ্যে উদ্যোগ গ্রহণ এবং বা্জারে মানসম্পন্ন আইপিও বাড়াতে বহুজাতিক ও সরকারি মালিকানাধীন কোম্পানি তালিকাভুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া।

ইতোমধ্যে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

জোনাকি টেলিভিশন/এসএইচআর/১১-০৬-২০ইং


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা