1. [email protected] : admi2019 :
  2. [email protected] : খুলনা বিভাগ : খুলনা বিভাগ
  3. [email protected] : Monir monir : Monir monir
  4. [email protected] : Mostafa Khan : Mostafa Khan
  5. [email protected] : mahin : mahin khan
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন

তালগাছের উপর এ কেমন বর্বরতা পল্লী বিদ্যুৎ বিভাগের

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ জুন, ২০২১
  • ১০৯ বার পঠিত
smart

নরসিংদী প্রতিনিধি:

গাছ আমাদের জীবন বাঁচায় এ কথাটি যেমন সত্য, তেমনি আবার এই গাছ ছায়া দিয়ে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। সম্প্রতি নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ডাংগা ইউনিয়নে প্রায় তিন কিলোমিটার এরাকাজুড়ে দৃষ্টি নন্দন সড়কে প্রায় শতাধিক তালগাছ কেটে ফেলেছে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। ফলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, সরকারের দৃষ্টি নন্দন সড়ক স্থাপন প্রকল্পের মাধ্যমে ডাংগা ইউনিয়নের হাসানহাটা-তালতলা সড়কটি তৈরী করা হয়। পরবর্তীতে এই সড়কের দৃষ্টিনন্দন করতে সড়কের দুই ধারে তালগাছ রোপন প্রকল্প গ্রহন করে। এরই লক্ষ্যে সরকারী অর্থায়নে এই সড়কে তালগাছ রোপন করে প্রশাসন। এভাবে কিছুদিন যাওয়ার পর তালগাছগুলো পরিনত বয়স হলে এলাকার শোভা বর্ধনের পাশাপাশি এলাকার পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

এভাবে কিছুদিন পর সরকারী সিদ্ধান্তে বজ্রপাত প্রতিরোধে সারাদেশে তালবীজ রোপন প্রকল্প গ্রহণ করে। এরই অংশ হিসেবে পলাশ উপজেলার ডাংগা ইউনিয়নে হাসানহাটা-তালতলা গ্রামের উপর দিয়ে দৃষ্টি নন্দন সড়কে তালবীজ রোপন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এই সড়কের তালগাছগুলো পরিনত হলে একদিকে এলাকার পরিবেশের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করে। অপরদিকে এলাকার বজ্রপাত প্রতিরোধেও ভূমিকা রেখে আসছি।

স্থানীয়রা জানায়, এই তালগাছ থাকায় আশপাশের এলাকার শত শত লোকজন এখানে সময় কাটাতে চলে আসেন, পথচারী ও স্থানীয় কৃষকরা গাছের ছায়ায় বসে ক্লান্তি দুর করেন।

এখন গাছগুলো কেটে ফেলায় এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে যারফলে এলাকায় আর অতিথি ঘুরতে আসেনা। এলাকার পরিবেশ এখন মরুভূমিতে পরিনত হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাবের উল হাই জানান, সরকারীভাবে এই সড়ককে দৃষ্টিনন্দন করে তোলার লক্ষ্যে তালবীজ রোপন করা হয়েছে। এখন পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ কাউকে না জানিয়ে নিজেদের ইচ্ছেমতো গাছগুলো কেটে ফেলেছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও এই তালগাছগুলো না কাটার জন্য পল্লী বিদ্যুৎকে অনুরোধ করেন। কিন্তু তারা কারো কথাই রাখেনি।

এবিষয়ে পলাশ উপজেলা বন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আমীরুল ইসলাম জানান, পলাশ উপজেলায় সরকারীভাবে রেজুলেশনের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ গাছ কাটতে হলে উপজেলা প্রশাসনকে বাধ্যতামূলক জানাতে হবে। কিন্তু উপজেলার এই সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ যত্রতত্র গাছ কর্তন করছে। পল্লী বিদ্যুতের এভাবে গাছ কাটায় পলাশ উপজেলা বন বিভাগের পক্ষ থেকে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

পল্লী বিদ্যুতের ঘোড়াশাল জোনাল অফিসের উপ মহা ব্যবস্থাপন শাহাদাত হোসেন জানান, সরকারী সিদ্ধান্তে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে গাছ কর্তন করা হয়েছে। এটা অফিসের বা ব্যক্তিগত কোন সিদ্ধান্ত নয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..