1. [email protected] : admi2019 :
  2. [email protected] : খুলনা বিভাগ : খুলনা বিভাগ
  3. [email protected] : Monir monir : Monir monir
  4. [email protected] : Mostafa Khan : Mostafa Khan
  5. [email protected] : mahin : mahin khan
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন

নরসিংদীতে মজুদ শেষ, সাময়িক বন্ধ করোনার টিকাদান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট, ২০২১
  • ৭১ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

নরসিংদীতে মজুদ শেষ হওয়ায় সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে করোনার টিকাদান কার্যক্রম। জেলার ৮টি কেন্দ্রে গিয়ে টিকা না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন নিবন্ধন করা শত শত মানুষ। তবে টিকা সরবরাহ পেলে রবিবার থেকে পুণরায় এ  কার্যক্রম শুরু করা যাবে বলে আশাবাদী জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে কথা বলে জানা যায়, মজুদ শেষ হওয়ায় মঙ্গলবার দুপুর থেকেই করোনার নিয়মিত টিকাদান বন্ধ হয়ে যায় নরসিংদীর কোভিড ডেডিকেটেড ১০০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে। মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি টিকা নিতে আসেন জেলা হাসপাতালে। দুপুর ১২টা পর্যন্ত তিন শতাধিক ব্যক্তিকে টিকা দেওয়া হয়। এরপরই টিকা নিতে আগ্রহী নিবন্ধন করা ব্যক্তিদের টিকা নেই বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। এতে হতাশ হয়ে ফিরে যান অনেকে।

পরদিন বুধবার দুপুর থেকে টিকাদান বন্ধ হয়ে যায় সদর হাসপাতাল কেন্দ্রে। এছাড়া একই দিন বন্ধ হয়ে গেছে জেলার ৬ উপজেলার মোট ৮টি কেন্দ্রের নিয়মিত টিকাদান। সকাল থেকে পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী টিকা কেন্দ্রগুলোতে ভিড় করলেও টিকা না পেয়ে ফিরে যেতে গেছেন নিবন্ধন করা হাজারো নারী পুরুষ। টিকার মজুদ ফুরিয়ে যাওয়ায় জেলাজুড়ে টিকাদান কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানানো হচ্ছে টিকাকেন্দ্রগুলো থেকে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন টিকা নিতে আসা নারী পুরুষ।

জেলা হাসপাতালে টিকা নিতে আসা ফরিদ আহমেদ নামের একজন জানান, টিকাকার্ড নিয়ে এসে তিন ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার পর জেনেছি, টিকা নাকি ফুরিয়ে গেছে। তাই টিকা পেলাম না। এখন তো টেনশন হচ্ছে, আর টিকা পাবো কি না?

শফিক মিয়া বলেন, নিবন্ধন করার পর জেলা হাসপাতাল কেন্দ্রে প্রথম ডোজ টিকা নিতে এসেছিলাম। কেন্দ্র থেকে বলা হয়েছে টিকা ফুরিয়ে গেছে। তাই টিকা নেয়া হয়নি, কবে নিতে পারবো তাও নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না তারা।

নরসিংদীর কোভিড ডেডিকেটেড ১০০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা এএনএম মিজানুর রহমান জানান, সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে মঙ্গলবার সিনোফার্মের মাত্র ৩০০ টিকা পেয়েছিলাম। এর মধ্যে ২০৫ জনকে প্রথম ডোজ ও ৯৫ জনকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। এছাড়া ১০ জনকে অ্যাস্ট্রেজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। এরপরই আমাদের কাছে আর টিকা না থাকায় শতাধিক ব্যক্তিকে টিকা দেওয়া যায়নি। আমাদের জানানো হয়েছে, আপাতত টিকার মজুদ ফুরিয়ে গেছে, আবার হাতে পেলে টিকাদান শুরু হবে।

নরসিংদীর সিভিল সার্জন ডা. মো. নূরুল ইসলাম বলেন, জেলায় গত এক সপ্তাহে ৭৭ হাজার ১৭৭ জনকে টিকা দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। হঠাৎ করে টিকার চাহিদা বেড়ে মজুদ ফুরিয়ে যাওয়ায় স্বাভাবিক টিকাদান কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ হয়ে গেছে। সরবরাহ পেলে আগামী রোববার থেকে আবারও নিয়মিত টিকাদান শুরু করা যাবে বলে আমরা আশাবাদী।

তিনি আরও জানান, এ পর্যন্ত ২ লাখ ২৮ হাজার ৭০০ ডোজ টিকা বরাদ্দ পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এর মধ্যে সিনোফার্মের ১ লাখ ১৩ হাজার ২০০ ডোজ এবং কোভিশিল্ডের ১ লাখ ১৫ হাজার ৫০০ ডোজ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..