1. [email protected] : admi2019 :
  2. [email protected] : খুলনা বিভাগ : খুলনা বিভাগ
  3. [email protected] : Monir monir : Monir monir
  4. [email protected] : Mostafa Khan : Mostafa Khan
  5. [email protected] : mahin : mahin khan
শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

নরসিংদীতে পূর্বশত্রুতার জেরে গার্মেন্টস কর্মীর হাত কেটে নিলো প্রতিপক্ষ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ২৭৬ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নরসিংদীর রায়পুরায় পূর্বশত্রæতার জের ধরে আঃ রহমান (২৫) নামে এক গার্মেন্টস কর্মী ও দুই সন্তানের জনকের কব্জীসহ বাম হাত কেটে নেওয়ার অভিযোগ প্রতিপক্ষের লোকজন বিরোদ্ধে। উক্ত ঘটনার জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নূরে আলম ও সাদ্দাম হোসেন নামে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার ভোররাত আনুমানিক সাড়ে চার ঘটিকায় রায়পুরা উপজেলার অলিপুরা ইউনিয়নের সাহেবনগর পলাশতলী মোড়ে এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, গত দুই বছর পূর্বে উপজেলার অলিপুরা ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামের প্রয়াত জুলমত প্রধান বাড়ীর সিরাজুল ইসলাম শিরু ও প্রতিবেশী এলাকা একই উপজেলার উত্তরবাখরনগর ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের শমসু বাড়ির খলিল মিয়ার লোকজনের মধ্যে পাখির বাসা ভাঙ্গা নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। ঐসময় হামলা ও ভাংচুরের ঘটনাও ঘটে। উক্ত ঘটনার কিছুদিন পর গ্রাম্য সালিশের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সিরাজুল ইসলাম শিরুর পক্ষকে এক লাখ টাকা জরিমানা পরিশোধ করেন রতনপুর গ্রামের খলিল মিয়ার লোকজন। উক্ত মিমাংসিত ঘটনার প্রায় দুই বছর পরে বৃহস্পতিবার (০৩ ফেব্রæয়ারী) লাখ টাকা জরিমানার পরে এবার হাতের কব্জী দিতে হলো একই পক্ষের আঃ রহমান নামে দুই সন্তানের জনককে। সে নরসিংদীস্থ্য থার্মেক্স গ্রæপের ডায়িংএর কাজ করতো।

আহত আঃ রহমানের মা সালমা বেগম জানান, পাখির বাসা ভাঙ্গা নিয়ে প্রায় দুই বছর আগে আমাদের সাথে পাশর্^বর্তি গ্রামের সিরাজুল ইসলাম শিরুর লোকজনের ঝগড়া হয়। পরে পাল্টাপাল্টি মামলাও হয়। পরে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে আমাদেরকে এক লাখ টাকা জরিমানা দিতে হয়েছে। এতদিন সবাই সুন্দরভাবে চলাফেলা করে আসছি। আজ ভোরে হঠাৎ একই প্রতিষ্ঠানে কাজ করে (প্রতিপক্ষ সমর্থক) সাদ্দাম হোসেন কাজে যাওয়ার কথা বলে আমার ছেলেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর ঘন্টাখানেক পরে নিকটস্থ সাহেবনগর পলাশতলী মোড়ে আঃ রহমানকে বাম হাতের কব্জী কাটা অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে। পরে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। উক্ত ঘটনার পরে অভিযুক্ত প্রতিপক্ষের বাড়ীতে গিয়ে কাউকে খুজে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে রায়পুরা থানার ওসি তদন্ত গোবিন্দ সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এখনো অভিযোগ পাইটি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..