1. [email protected] : admi2019 :
  2. [email protected] : Monir monir : Monir monir
  3. [email protected] : Mostafa Khan : Mostafa Khan
  4. [email protected] : mahin : mahin khan
মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৮:০৫ অপরাহ্ন

রমজানের আগেই বাড়তি মূল্য বেগুন-মরিচ-শসার দাম এক লাফে তিনগুণ

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ৬১ বার পঠিত

মো: শাহাদাৎ হোসেন রাজু, নরসিংদী :

পবিত্র রমজান মাসের চাঁদ দেখা গেছে, আগামীকাল শনিবার রোজা। ঘোষণাটা কিছুক্ষণ আগে পেলেও সকাল থেকেই নরসিংদীর বাজারগুলোতে রমজানের বাতাস বইতেছিল। নরসিংদীর বিভিন্ন বাজারগুলোতে অন্যান্য দিনের তুলনায় বিপুল সংখ্যক ক্রেতা সমাগম ঘটেছে। করোনা প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধ করতে নরসিংদীতে চলছে লক ডাউন। কিন্তু রমজান মাসের বাজার করার জন্য অধিকাংশ মানুষকেই আজ শুক্রবার বাজারে আসতে গেছে। মানুষের সমাগমে বাজারগুলোর চিত্র পুরোপুরি পাল্টে যায়। আর এই সুযোগটা নেয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।

রমজানকে সামনে রেখে প্রায় সকল প্রকার নিত্য প্রয়োজনী দ্রব্য সামগ্রীর বাড়তি মূল্যে বিক্রি করা হয়। কাঁচা বাজার গুলোতে বেগুন, কাচা মরিচ ও শসার দাম একদিনেই এক লাফে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে তিনগুণে। যা অনেককেই বিষ্মিত করেছে। সকাল থেকে নরসিংদীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার বেগুন বিক্রি হয়েছিল ১৫ থেকে ২০ টাকা কেজি।

আজ ওই বেগুন নরসিংদীর খুচরা বাজার থেকে কিনতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা গুনেছেন ক্রেতারা। জেলার পাইকারী বাজারগুলো থেকে সবজি আনতে পরিবহনের খরচও খুব বেশি হেরফের হয়নি। এর পরও রোজায় চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় বাড়তি মূল্যে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। রমজানের আগেই জেলার বাজার সরগরম হয়ে উঠেছে। এতে ব্যবসায়ীরাও বিভিন্ন পণ্যের দাম বাড়িয়ে বাগিয়ে নিচ্ছেন অতিমুনাফা। এর আগে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় এক দফা নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। রমজান আসতেই সবজির দাম বহুগুণ বাড়িয়ে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা।

শুক্রবার জেলার বিভিন্ন বাজারে খুচরায় প্রতি কেজি বেগুন, শসা ও কাঁচামরিচ ৫০ থেকে ৬৫ টাকার মধ্যে বেচাকেনা হয়েছে। দু’দিন আগেও তা ১৫ থেকে ৩০ টাকা ছিল। এক লাফে প্রায় তিনগুণ হয়েছে। লেবুর দাম সবচেয়ে বেশী। এখন কলম্বো লেবুর হালি মানভেদে ১২০ থেকে ১৫০ টাকায় উঠেছে। দু’দিন আগেও তা ৭০ থেকে ৮০ টাকা ছিল। এ ছাড়া ঝিঙা, চিচিঙ্গা ও করলার দাম দ্বিগুণ বেড়ে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি হয়েছে। অন্যান্য সবজির দামেরও একই অবস্থা। তিন দিন আগে প্রতি কেজি টমেটো ছিল ১০ টাকা। এখন তা বেড়ে ৩০ থেকে ৪০ টাকা হয়েছে। খুচরা সবজি বিক্রেতারা বলেন, পাইকারি আড়ত থেকে দ্বিগুণ ও তিনগুণ বাড়তি দামে সবজি আনতে হচ্ছে। তাই হঠাৎ সবজির দাম বেড়ে গেছে। ভেলানগর বাজারের সবজি বিক্রেতা মান্নান বলেন, ‘এখন মোকামে সবজির দাম বাড়তি, তাই বাজারে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।’ খুচরা বাজারগুলোতে সবজির দাম যত বাড়ছে, কৃষকদের সঙ্গে দামের ব্যবধানও তত বেশি হচ্ছে।

নরসিংদী জেলার সবজির তিনটি বড় পাইকারি বাজার বারৈচা, মরজাল ও শিবপুরে গত বুধবার প্রতি মণ বেগুন ৪০০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এ হিসাবে প্রতি কেজির দাম পড়েছে ১০ থেকে সাড়ে ১২ টাকা। কৃষক রফিকুল ইসলাম জানান, গত সপ্তাহের শুরুতে প্রতি মণ বেগুন ছিল ১৫০ থেকে ২০০ টাকা। তখন প্রতি কেজি চার থেকে পাঁচ টাকায় বিক্রি করেছেন। সবজি ছাড়াও প্রতি কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ব্রয়লার মুরগি ১১০ থেকে ১১৫ টাকা ও সোনালী মুরগি ০৫ টাকা বেড়ে ২১০ টাকা হয়েছে। বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস। প্রতি কেজি ৫৮০ থেকে ৬০০ টাকা। গতকাল আরও বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। কেজিতে পাঁচ টাকা বেড়ে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, ১০ টাকা বেড়ে দেশি রসুন ১২০ থেকে ১৩০ টাকা ও আমদানি রসুন ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা হয়েছে। এখন সবচেয়ে বেশি দাম বেড়ে বিক্রি হচ্ছে আদা। প্রতি কেজি আদা বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৩২০ টাকা। দাম বেড়েছে অন্যান্য নিত্যপণ্যেরও।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..