1. [email protected] : admi2019 :
  2. [email protected] : Monir monir : Monir monir
  3. [email protected] : Mostafa Khan : Mostafa Khan
  4. [email protected] : mahin : mahin khan
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০২:০৮ অপরাহ্ন

বিদেশী চারা গ্রাফটিং ও বাীজ বিক্রির নার্সারীর ছড়াছড়ি, প্রয়োজন সঠিক তদারকি

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
  • ৫১ বার পঠিত
মো: মফিজ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (আখাউড়ার লাইন), প্রবীন কৃষি বিদ- বিসিএস কৃষি ও পেশাদার পরামের্শক ইউ. এস. এইড ওয়াশিংটন, প্রাইম, বিডি (অব:)

ডেস্ক রিপোর্ট:
প্রতি বৎসরের মতো এমন বৃক্ষরোপণের ভরা মৌসুম সচেতন দেশবাসী জটিল বৈশি^ক করোনা ভাইরাসের মহামারী সত্বেও যতদূর সম্ভব স্বাস্থ্য বিধি ও নির্দেশনা মেনে এদেশের ও নিজের স্বার্থে এবং তাগিদে, আবার কোথাও কোথঅও সরকারী এবং বেসরকারী সহায়তায় ফলজ, বনজ, ঔষধী, বাহাী ফুল সহ নানা জাত ও প্রজাতির বৃক্ষরাজি বেশ ভালো পরিমানে রোপন করছেন।
তবে চটজলদি ফলদায়ক ও অধিক ফলনের বিদেশী হাইব্রিড জাতের ফলজ চারা, কলম ও গ্রাফটিং রোপণে আগ্রহ আর আকর্ষনীয় বেশী পরিলক্ষিত হচ্ছে। বিশেষ করে ভিয়েত নামের হাইব্রিড নারিকেল, আম, পেয়ারা, লেবু, থাইল্যান্ডের হাইব্রিড ও বারোমাসী আম, পেয়ারা, লেবু, জামবোরা, চায়না লিচুর, কমলা, মালটা, আরব দেশের নানাজাতের খেজুর রামবুটান, আপেল এ সমস্ত নানাজাত ও প্রজাতির ফলজ বৃক্ষরাজি।

আবার এ সকল রোপনের বিশেষ আকর্ষন বহুআংশে বাড়িয়ে দিচ্ছে দেশের আনাচে কানাচে গড়ে উঠা অগনিত নার্সারীর চটকদারী বিজ্ঞাপনের রয়ান। আমরা সকলেই আবশ্য চাই, এদেশটা অবিলম্বে ফুলেফলে সবুজ নিলিমায় ভরে উঠুক। কিন্তু বাস্তবতায় ও পরিস্থিতির আলোকে দেখা যায়, অনেক বিত্তশালী ব্যাক্তি, খোনাবললে নয়) উনাদের বৃক্ষের জাত ও প্রজাতি জ্ঞানের স্বল্পতা এবং সে সাথে অভিজ্ঞতা লাভের সময় সুযোগ না থাকায় নার্সারীর মালিকদের চল চাতুরীর ফাঁদে পড়ে বহুগুন বেশী মূল্য দিয়ে ঐ সমস্ত জাতের নকল চারা, কলম গ্রাফটিং ও বীজ কিনে বেশ প্রতারিত হচ্ছেন এবং এ পরিস্থিতির কোন উন্নতি বা প্রতিকার না করা হলে আগতদিনে আরো বেশী প্রতারিত হবেন। তাছাড়া বৃক্ষরাজি রোপন কারী প্রায় সবাই কোন না কোনভাবে নার্সারী ম্যানদের দ্বারা কম বেশী প্রতারিত হচ্ছেন। এহেন বাস্তব অবস্থায় প্রেক্ষিতে, দেশে ফলজ বৃক্ষে রোপনে জনগনের অনিহা সহ বিরোপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিবে। তাই, বর্ণিত বিষয়টির আলোকে দেশ ও জনস্বার্থে এবং বাটপারী ও ধোকাবাজি বন্ধে সংশ্লিষ্টে কর্তৃপক্ষ, বিশেষ করে এ সমস্ত নিয়ন্ত্রনকারী কর্তৃপক্ষ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কে বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি। উনারা যেন অতিদ্রুত গণ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেন- দেশের কোন কোন সংস্থা নার্সারী বা বীজ ব্যবসায়ী ঐ সমস্ত ফলজ বৃক্ষের চারা, বীজ, কলম, গ্রাফটিং এসব বিদেশে হাতে আমদানীর ও বিপননের লাইসেন্স বা ক্ষমতা প্রাপ্ত। সে সাথে এ বিষয় ভিত্তিক নিয়ম-কানুন প্রকাশ সহ সুষ্ঠু তদারকী ও নজর দারীর মাধ্যমে কৃষি বান্ধব সরকারের আরো অধিক সফলতা আনয়নে ও জনগণের ভোগান্তি লাগবে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করে সকলকে বাধিত করবেন।

লেখক:
মো: মফিজ উদ্দীন
বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (আখাউড়ার লাইন), প্রবীন কৃষি বিদ- বিসিএস কৃষি ও পেশাদার পরামের্শক ইউ. এস. এইড ওয়াশিংটন, প্রাইম, বিডি (অব:)

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..